পরিত্রাণ লাভের ধাপসমূহ কী কী?


প্রশ্ন: পরিত্রাণ লাভের ধাপসমূহ কী কী?

উত্তর:
এই পৃথিবীর অনেক লোক "পরিত্রাণ লাভের ধাপ বা স্তরগুলো"-র খোঁজ করছে। লোকেরা এই ধারণাটি পছন্দ করে যে, তারা যদি পাঁচটি ধাপ বা স্তরের লিখিত কোন নির্দেশনা অনুসরণ করে তাহলে তার ফল হিসাবে তারা পরিত্রাণ পাবে। উদাহরণস্বরূপ আমরা ইসলাম ধর্মের পাঁচটি পিলার বা ধাপের কথা বলতে পারি। ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী কেউ যদি এই পাঁচটি পিলার বা ধাপ পালন করে তাহলে তার জন্য পরিত্রাণ নিশ্চিত। যেহেতু পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য এই ধাপের পর ধাপ প্রক্রিয়াটি প্রয়োগ করা হয়ে থাকে সেহেতু অনেক খ্রীষ্টিয়ান গোষ্ঠীও এই ধাপ বা স্তর প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে পরিত্রাণের বিষয়টি ভুলভাবে উপস্থাপন করে থাকে। রোমান ক্যাথলিক ধর্মে সাতটি সাক্রামেন্তের উল্লেখ রয়েছে। বিভিন্ন ধর্মীয় গোষ্ঠীগুলো পরিত্রাণ পাওয়ার ক্ষেত্রে অবগাহন বা বাপ্তিস্ম, লোকেদের সামনে প্রকাশ্যে স্বীকার, পাপ থেকে ফিরে আসা, পরভাষায় কথা বলা ইত্যাদি বিষয়গুলোকে ধাপ বা স্তর হিসাবে অন্তর্ভুক্ত করে থাকে। কিন্তু পবিত্র বাইবেল পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য কেবলমাত্র একটি ধাপের কথাই বলে। ফিলিপীয় জেলরক্ষক যখন পৌলকে জিজ্ঞাসা করেছিল, "পরিত্রাণ পাইবার জন্য আমাকে কি করিতে হইবে?" তখন পৌলের উত্তরটি ছিল এমন- "তুমি ও তোমার পরিবার প্রভু যীশুতে বিশ্বাস কর, তাহলে পরিত্রাণ পাইবে" (প্রেরিত ১৬:৩০-৩১ পদ)।

পরিত্রাণ পাওয়ার ক্ষেত্রে যীশু খ্রীষ্টকে পরিত্রাণকর্তা হিসাবে বিশ্বাস করাই হচ্ছে একমাত্র পথ বা ধাপ। এ বিষয়ে শাস্ত্রের বাণী অত্যন্ত পরিস্কার ও সুস্পষ্ট। আমরা সকলেই ঈশ্বরের বিরুদ্ধে পাপ করেছি (রোমীয় ৩:২৩ পদ)। আমাদের পাপের কারণে আমরা ঈশ্বরের কাছ থেকে চিরদিনের জন্য আলাদা হয়ে পড়ার যোগ্য (রোমীয় ৬:২৩ পদ)। আমাদের প্রতি তাঁর অসীম প্রেমের জন্য (যোহন ৩:১৬ পদ) ঈশ্বর নিজে মানুষের বেশ ধারণ করলেন, আমাদের পরিবর্তে মৃত্যুবরণও করলেন যেন যে শাস্তি আমাদের প্রাপ্য তা তিনি বহন করতে পারেন (রোমীয় ৫:৮; ২করিন্থীয় ৫:২১ পদ)। ঈশ্বর প্রতিজ্ঞা করেছেন যে, যদি কেউ তার ব্যক্তিগত পরিত্রাণকর্তারূপে যীশু খ্রীষ্টকে বিশ্বাসে গ্রহণ করে তাহলে তিনি তাদের সমস্ত পাপ ক্ষমা করবেন এবং স্বর্গীয় অনন্ত জীবন দান করবেন (যোহন ১:১২; ৩:১৬; ৫:২৪; প্রেরিত ১৬:৩১ পদ)।

পরিত্রাণ কোন ধাপ বা স্তরের বিষয় নয় যা অর্জন করার জন্য আমাদের সেগুলো অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে। হ্যাঁ, খ্রীষ্টিয়ানদের বাপ্তাইজিত হওয়া উচিত। আবার তাদের মুক্তিদাতা হিসাবে খ্রীষ্টকে লোকের সামনে স্বীকার করাও উচিত। খ্রীষ্টিয়ানদের পাপ থেকে ফিরে আসা উচিত। সেই সঙ্গে সঙ্গে খ্রীষ্টিয়ানদের উচিত ঈশ্বরের বাধ্যতায় জীবন যাপন করতে অঙ্গীকারাবদ্ধ হওয়া। যাহোক, এগুলোর কোনটিই পরিত্রাণ পাওয়ার পথ বা ধাপ নয়। হতে পারে আমরা এক হাজারটি ধাপ অনুসরণ করি, কিন্তু তাও পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য যথেষ্ট হবে না। আর সেজন্যই আমাদের পরিবর্তে যীশুকে মরতে হয়েছিল। প্রকৃতপক্ষে আমরা কোনভাবেই ঈশ্বরের প্রতি আমাদের যে পাপের ঋণ তা পরিশোধ করতে এবং নিজেদের পরিস্কৃত করতে সক্ষম নই। একমাত্র ঈশ্বরই আমাদের পরিত্রাণ করতে পারেন এবং তিনি তা-ই আমাদের জন্য করেছেন। ঈশ্বর নিজে আমাদের পক্ষে সমস্ত "ধাপগুলো" সম্পন্ন করলেন এবং যারা তাঁর কাছ থেকে এই মহামূল্য পরিত্রাণ গ্রহণ করতে চায় তাদের তিনি তা অকাতরে দিয়ে থাকেন।

পাপ থেকে মুক্তি ও ক্ষমা লাভের বিষয়টি কোন অনুসরণযোগ্য ধাপ বা স্তর নয়। এটি হচ্ছে খ্রীষ্টকে পরিত্রাণকর্তা হিসাবে গ্রহণ করা এবং স্বীকার করা যে, তিনি আমাদের জন্য সব কিছুই সম্পন্ন করেছেন। ঈশ্বর আমাদের কাছে কেবলমাত্র একটি বিষয়ই প্রত্যাশা করেন যেন আমরা পরিত্রাতা হিসাবে যীশু খ্রীষ্টকে গ্রহণ করি এবং পরিত্রাণ লাভের একমাত্র উপায় বা পথ হিসাবে তাঁর উপর পরিপূর্ণ আস্থা বজায় রাখি। আর এটিই হচ্ছে পৃথিবীর অন্যান্য ধর্ম থেকে খ্রীষ্টধর্মের পার্থক্য যেখানে তারা পরিত্রাণ বা উদ্ধার পাওয়ার ক্ষেত্রে অনেকগুলো ধাপ বা স্তরের কথা উল্লেখ করে যা লোকদের অবশ্যই পালন করতে হবে। খ্রীষ্টিয় বিশ্বাস এটি স্বীকার করে যে, ঈশ্বর ইতোমধ্যে এই সমস্ত ধাপ বা স্তরগুলো সম্পন্ন করেছেন, এবং তিনি এখন আমাদের আহবান করছেন যেন আমরা বিশ্বাসে তাঁকে গ্রহণ করি।

এগুলো পড়ে আপনি কি খ্রীষ্টের পক্ষে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছেন? যদি নিয়ে থাকেন, তাহলে, ‘আমি আজকে খ্রীষ্টকে গ্রহণ করেছি’ লেখা নীচের বোতামে টিক চিহ্ন দিন।

English


বাংলা হোম পেজে ফিরে যান
পরিত্রাণ লাভের ধাপসমূহ কী কী?