আমি কিভাবে নরকে প্রবেশ না করতে পারি?


প্রশ্ন: আমি কিভাবে নরকে প্রবেশ না করতে পারি?

উত্তর:
আপনার চিন্তার চেয়েও নরকে না যাওয়াটা সহজ। কেউ কেউ বিশ্বাস করেন যে, নরকে না যাওয়ার জন্য সারা জীবনভর তাদের অবশ্যই দশ আজ্ঞা পালন করতে হবে। আবার কেউ কেউ বিশ্বাস করেন যে, নরকে না যেতে চাইলে তাদের অবশ্যই সামাজিক সুনির্দিষ্ট রীতিনীতিগুলোর চর্চা করতে হবে। কিছু লোক বিশ্বাস করেন যে, আমরা নরকে যাব কি যাব না সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার কোন পথ নেই। এই সব দৃষ্টিভঙ্গির কোনটিই সঠিক নয়। কোন ব্যক্তি তার মৃত্যুর পর কিভাবে নরককে এড়াতে পারে তা পবিত্র বাইবেলে অত্যন্ত সুস্পষ্টভাবে প্রকাশ করা হয়েছে।

বাইবেলে নরককে অত্যন্ত যন্ত্রণাদায়ক এবং ভয়ংকররূপে বর্ণনা করা হয়েছে। নরককে "অনন্ত অগ্নি" (মথি ২৫:৪১ পদ), "অনির্বাণ অগ্নি" (মথি ৩:১২ পদ), "লজ্জার ও অনন্ত ঘৃণা" (দানিয়েল ১২:২ পদ), এমন জায়গা যেখানে "আগুন কখনও নির্বাপিত হয় না" (মার্ক ৯:৪৪-৪৯ পদ), এবং "অনন্তকালস্থায়ী বিনাশ" (২থিষলনীকীয় ১:৯ পদ) প্রভৃতি নামে বর্ণনা করা হয়েছে। প্রকাশিত বাক্য ২০:১০ পদে নরককে "অগ্নি ও গন্ধকের হ্রদ"-রূপে বর্ণনা করা হয়েছে যেখানে দুষ্ট লোকেরা "যুগপর্যায়ের যুগে যুগে দিবারাত্র যন্ত্রণা ভোগ করিবে" (প্রকাশিত বাক্য ২০:১০খ পদ)।

কেন নরকের অস্তিত্ব বিদ্যমান এবং ঈশ্বর কেনই বা কাউকে কাউকে সেখানে পাঠিয়ে থাকেন? পবিত্র বাইবেল আমাদের এই কথা বলে যে, ঈশ্বরের বিরুদ্ধাচারণ করার জন্য তিনি শয়তান এবং পতিত স্বর্গদূতদের জন্য নরক "প্রস্তুত করলেন"(মথি ২৫:৪১ পদ)। যারা ঈশ্বরের দেওয়া ক্ষমাকে প্রত্যাখ্যান করবে তাদের শেষ পরিণতিও শয়তান এবং পতিত স্বর্গদূতদের মতই হবে। প্রশ্ন হলো- নরক কেন প্রয়োজন? সমস্ত পাপই অবধারিতভাবে ঈশ্বরের বিরুদ্ধে করা হয়ে থাকে (গীতসংহিতা ৫১:৪ পদ), এবং যেহেতু ঈশ্বর অসীম ও অনন্ত, সেহেতু তার জন্য অসীম ও অনন্ত শাস্তিই যথেষ্ট। নরক হলো এমন একটি জায়গা যেখানে ঈশ্বরের পবিত্রতা ও ন্যায়পরায়নতা সুদূরপরাহত। নরক হচ্ছে সেই জায়গা যেখানে পাপের প্রতি ঈশ্বরের ঘৃণা এবং যারা তাঁকে প্রত্যাখ্যান করেছে তারা বাস করে। বাইবেল এই বিষয়টি আরও স্পষ্ট করে যে, আমরা সকলেই পাপ করেছি (উপদেশক ৭:২০; রোমীয় ৩:১০-২৩ পদ), আর তাই এর প্রতিফল হিসাবে আমরা সকলেই নরকে যাবার যোগ্য।

তাহলে আমরা কিভাবে নরকে না গিয়ে থাকতে পারি? যেহেতু এর জন্য অসীম ও অনন্ত শাস্তিই যথেষ্ট, সেহেতু এর জন্য অবশ্যই অনন্ত ও অসীম মূল্যই পরিশোধ করতে হবে। যীশু খ্রীষ্টের মধ্য দিয়ে ঈশ্বর নিজে মাবনরূপ ধারণ করলেন। যীশুর মাধ্যমে তিনি আমাদের সাথে বাস করেন, আমাদের শিক্ষা প্রদান করেন এবং আমাদের আরোগ্য করেন, সত্যিকার অর্থে এটিই কিন্তু তার চূড়ান্ত উদ্দেশ্য নয়। ঈশ্বর মানুষ হলেন (যোহন ১:১,১৪ পদ) যেন তিনি আমাদের জন্য মরতে পারেন। যীশুর মানবদেহে ঈশ্বরই ক্রশে প্রাণ দিলেন। ঈশ্বর হওয়ার কারণে তাঁর মৃত্যুর মূল্যও ছিল অসীম এবং অনন্ত যা পাপের পরিপূর্ণভাবে মূল্য পরিশোধ করেছে (১যোহন ২:২ পদ)। ঈশ্বর আমাদের আহ্বান করেন যেন আমরা যীশু খ্রীষ্টকে আমাদের মুক্তিদাতারূপে ধারণ করি এবং তাঁর মৃত্যুকে আমাদের পাপের জন্য পরিপূর্ণ মূল্য পরিশোধ হিসাবে গ্রহণ করি। ঈশ্বর প্রতিজ্ঞা করেছেন, যে কেউ যীশুকে বিশ্বাস করে (যোহন ৩:১৬ পদ), মুক্তিদাতারূপে তাঁর উপর আস্থা রাখে (যোহন ১৪:৬ পদ) তারা সকলে নরকে যাওয়ার পরিবর্তে পরিত্রাণ লাভ করবে।

ঈশ্বর চান না কেউ নরকে যাক (২পিতর ৩:৯ পদ)। সেই কারণে ঈশ্বর আমাদের পক্ষে চূড়ান্ত, নিখুঁত এবং যথার্থ বলিদানের ব্যবস্থা করলেন। যদি আপনি নরকে যেতে না চান তাহলে যীশুকে আপনার পরিত্রাণকর্তারূপে গ্রহণ করুন। এটি খুবই সহজ একটি বিষয় যা আপনি করতে পারেন। ঈশ্বরকে বলুন- আপনি উপলব্ধি করতে পেরেছেন যে, আপনি পাপী যার জন্য আপনি নরকে যাবার যোগ্য। ঈশ্বরের কাছে স্বীকার করুন যে, আপনি যীশু খ্রীষ্টকে আপনার পরিত্রাণকর্তা বা মুক্তিদাতারূপে বিশ্বাস করছেন। ঈশ্বরের কাছে কৃতজ্ঞতা স্বীকার করুন যে, তিনি আপনার জন্য পরিত্রাণ দান করেছেন এবং আপনাকে নরক থেকে উদ্ধার করেছেন। সরল বিশ্বাস, যীশু খ্রীষ্টকে মুক্তিদাতারূপে ভরসা করাই হচ্ছে সেই পথ বা উপায় যার মধ্য দিয়ে আপনি নরককে এড়াতে পারেন।!

এগুলো পড়ে আপনি কি খ্রীষ্টের পক্ষে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছেন? যদি নিয়ে থাকেন, তাহলে, ‘আমি আজকে খ্রীষ্টকে গ্রহণ করেছি’ লেখা নীচের বোতামে টিক চিহ্ন দিন।

English


বাংলা হোম পেজে ফিরে যান
আমি কিভাবে নরকে প্রবেশ না করতে পারি?