খ্রীষ্ট ধর্মের ইতিহাস কি?


প্রশ্ন: খ্রীষ্ট ধর্মের ইতিহাস কি?

উত্তর:
খ্রীষ্ট ধর্মের ইতিহাস প্রকৃতপক্ষে পশ্চিমী সভ্যতার ইতিহাস I খ্রীষ্ট ধর্মের সমাজের উপরে বিশদভাবে এক সর্বব্যাপী প্রভাব রয়েছে – কলা, ভাষা, রাজনীতি, আইন, পারিবারিক জীবন, ক্যালেন্ডারের তারিখ, সঙ্গীত, এবং যে বিশেষ ভাবে আমরা চিন্তা করি আমাদের মনে হয় তা প্রায় দুই সহস্রাব্দ ধরে খ্রীষ্টান প্রভাব দ্বারা চিত্রিত হয়েছে I মন্ডলীর কাহিনী, সুতরাং, জানা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় I

মন্ডলীর আরম্ভ

মন্ডলী যীশুর পুনরুত্থানের 50 বছর পরে শুরু হয়েছিল (প্রায় 30 খ্রীষ্টাব্দ) I যীশু প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে তিনি তাঁর মন্ডলী নির্মাণ করবেন (মথি 16:18), এবং পেন্টেকোস্টের দিনে পবিত্র আত্মার আগমনের সাথে সাথে (প্রেরিত 2:1-4) – এক্কেলেসিয়া (“আহূত সমাবেশ”)-অধিকারিক রূপে শুরু হ’ল I তিন হাজার লোক সেই দিনে পিতরের উপদেশের প্রতি সাড়া দিল এবং খ্রীষ্টকে অনুসরণ করতে পচ্ছন্দ করল I

খ্রীষ্ট ধর্মে প্রাথমিক ধর্মান্তরিত হয়েছিল যিহূদি বা যিহূদি ধর্মে ধর্মান্তরিত ব্যক্তি, এবং মন্ডলী যিরূশালেমে কেন্দ্রীভূত ছিল I এই কারণেই খ্রীষ্ট ধর্মকে প্রথমে ফারিসী, সদ্দূকী, বা এসেনীয়দের মতন যিহূদি সম্প্রদায় হিসাবে দেখা যেত I তবে, প্রেরিত্র যা প্রচার করেছিল তা অন্যান্য যিহূদি গোষ্ঠীগুলির শিক্ষা থেকে সম্পুর্ণ আলাদা ছিল I যীশু ছিলেন যিহূদি মশীহ (অভিষিক্ত রাজা) যিনি ব্যবস্থা (মথি 5:17) পরিপূর্ণ করতে এবং তার মৃত্যুর (মার্ক 14:24) ভিত্তিতে এক নতুন নিয়ম প্রতিষ্ঠিত করতে এসেছিলেন I এই বার্তাটি, এই অভিযোগের সাথে যে তারা তাদের নিজেদের মশীহকে হত্যা করেছিল, অনেক যিহূদি নেতাকে ক্ষুব্ধ করেছিল, এবং তর্শাসের সৌলের মতন কেউ কেউ “পথটিকে” উচ্ছেদ করতে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিল (প্রেরিত 9:1-2) I

এটা বলা ঠিক যে খ্রীষ্ট ধর্মে যিহূদি ধর্মের শিকড় রয়েছে I পুরনো নিয়ম নতুনটির ভিত্তি স্থাপন করেছিল, এবং পুরনো নিয়মের কার্যকর জ্ঞান ছাড়া খ্রীষ্ট ধর্মকে পুরোপুরি বোঝা অসম্ভব I (দেখুন মথি এবং ইব্রীয়র বইগুলি) I পুরনো নিয়ম এক মশীহর প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করে, মশীহর লোকেদের ইতিহাস রয়েছে, এবং মশীহর আগমনের ভবিষ্যদ্বাণী করে I নতুন নিয়ম, তাহলে, মশীহর আগমন এবং পাপ থেকে আমাদের বাঁচানোর জন্য তাঁর কাজ সম্পর্কে সমস্ত কিছু I তাঁর জীবনে যীশু 300টিরও বেশি নির্দিষ্ট ভবিষ্যদ্বাণী পূরণ করেছিলেন, প্রমাণ করেছিলেন যে তিনিই একজন ছিলেন পুরনো নিয়মের সেই প্রত্যাশা I

আদি মন্ডলীর বৃদ্ধি

পেন্টেকোস্টের খুব দীর্ঘদিন পরে নয়, মন্ডলীর দ্বার অ-যিহূদিদের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছিল I সুসমাচার প্রচারক ফিলিপ শমরিয়্দের কাছে প্রচার করেছিলেন (প্রেরিত 8:5), এবং তাদের মধ্যে অনেকে খ্রীষ্টে বিশ্বাস করেছিল I প্রেরিত পিতর কর্নেলিয়ার অ-যিহূদি পরিবারে প্রচার করেছিলেন (প্রেরিত 10), এবং তারাও, পবিত্র আত্মাকে গ্রহণ করেছিলো ৷ প্রেরিত পৌল (মন্ডলীর পূর্ববর্তী নির্যাতনকারী) পুরো গ্রীকো-রোমান জগৎ জুড়ে প্রচার করেন, রোমে যত দূর সম্ভব (প্রেরিত 28:16) এবং সম্ভবত স্পেনের সমস্ত পথে নিজেই পৌঁছেছিলেন I

70 খ্রীষ্টাব্দের মধ্যে, যিরূশালেম ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল, নতুন নিয়মের বেশিরভাগ বইগুলি সম্পূর্ণ হয়েছিলে এবং মন্ডলীতে বিতরণ করা হচ্ছিল I পরবর্তী 240 বছর ধরে, খ্রীষ্টানরা রোমের দ্বারা নির্যাতিত হয়েছিল – মাঝে মধ্যে এলোমেলোভাবে এবং কখনও কখনও সরকারী আদেশে I

দ্বিতীয় এবং তৃতীয় শতাব্দীতে, মন্ডলীর নেতৃত্ব সংখ্যার বৃদ্ধির সাথে সাথে আরও পুরোহিততান্ত্রিক হয়ে উঠলো I এই সময়ে বেশ কিছু ধর্মবিরোধী ব্যাক্তিদের খোলসা করা এবং খন্ড করা হয়েছিল এবং নতুন নিয়ম ক্যাননে সহমত হয়েছিল I নির্যাতন তীব্রতর হতে থাকে I

রোমান মন্ডলীর উত্থান

312 খ্রীষ্টাব্দে, থিওদিয়োসের রাজত্বকালে, খ্রীষ্ট ধর্ম রোম সাম্রাজ্যের এক সরকারী ধর্মে পরিণত হ’ল I সরকারের মধ্যে বিশপকে এক সম্মানীয় স্থান দেওয়া হ’ল, এবং 400 খ্রীষ্টাব্দের মধ্যে, “রোমান” এবং “খ্রীষ্টান” শব্দগুলি কার্যত সমার্থক শব্দ হয়ে উঠলো I

কনস্টান্টিনের পরে, তখন, খ্রীষ্টানরা আর নির্যাতিত হত না I কালক্রমে, পৌত্তলিকদের উপরে নির্যাতন করা হত যতক্ষণ না তারা খ্রীষ্টান ধর্মে “ধর্মান্তরিত” হত I এই ধরণের জোর করে ধর্মান্তরণগুলির ফলে অনেক লোক সত্যিকারের হৃদয় পরিবর্তন ছাড়াই মন্ডলীতে প্রবেশ করত I পৌত্তলিকরা তাদের প্রতিমা এবং যে সমস্ত অভ্যাসের সাথে অভ্যস্ত ছিল, সেগুলি তাদের সাথে এনেছিল এবং মন্ডলী বদলে গিয়েছিল; বিগ্রহ, বিস্তৃত স্থাপত্য শিল্প, তীর্থ স্থান, সাধুদের উপাসনা মন্ডলীর উপাসনার সরলতার সাথে যুক্ত হয়েছিল I প্রায় একই সময়ে কিছু খ্রীষ্টান রোম থেকে পিছু হটেছিল এবং সন্ন্যাসীরূপে বিচ্ছিন্নভাবে বাঁচতে বেছে নিয়েছিল, এবং মূল পাপ ধুয়ে দেবার উপায় হিসাবে শিশু বাপ্তিস্মের প্রচলন হয়েছিল I

পরবর্তী শতাব্দীগুলির মধ্যে, মন্ডলীর অধিকারিক মতবাদ নির্ধারণ করতে কেরানিজনিত অপব্যবহারকে সেন্সর করতে, সংঘর্ষকারী দলাদলির মধ্যে শান্তি স্থাপন করতে বিভিন্ন মন্ডলী পরিষদ অনুষ্ঠিত হয়েছিল I রোমান সাম্রাজ্য দুর্বল হওয়ার সাথে সাথে, মন্ডলী আরও শক্তিশালী হয়ে ওঠে এবং পশ্চিমের মন্ডলী এবং প্রাচ্যের মন্ডলীর মধ্যে অনেক পার্থক্য প্রাদুর্ভূত হল I রোমে অবস্থিত পাশ্চাত্য (ল্যাটিন) মন্ডলী অন্য সমস্ত মন্ডলীর উপরে প্রেরিতের কর্ত্তৃত্ব দাবি করেছিল I এমনকি রোমের বিশপ নিজেকে “পোপ” (পিতা) বলা শুরু করেছিলেন I কনস্টান্টিনোপলে অবস্থিত প্রাচ্য (গ্রীক) মন্ডলীর সাথে এটি ভালোভাবে বসে নি I ধর্মতাত্ত্বিক, রাজনৈতিক, পদ্ধতিগত, এবং ভাষাতাত্ত্বিক বিভাজনগুলি 1054 সালে বিরাট অনৈক্যে যোগ করেছিল, যার মধ্যে রোমান ক্যাথলিক (“সার্বজনীন”) মন্ডলী এবং প্রাচ্যের অর্থডক্স মন্ডলী একে অপরকে বহিষ্কার করল এবং সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করেছিল I

মধ্য যুগ

ইউরোপের মধ্য যুগের সময়ে, রোমান ক্যাথলিক মন্ডলী ক্ষমতা অব্যাহত রেখেছিল, পোপরা জীবনের প্রতিটি স্তরের কর্ত্তৃত্ব দাবি করেছিল এবং রাজার মতন জীবন যাপন করছিল I মন্ডলীর নেতৃত্বে দুর্নীতি এবং লোভ সাধারণ বিষয় ছিল I পোপ 1095 থেকে 1204 পর্যন্ত মুসলমানদের অগ্রযাত্রাকে প্রতিহত করতে ও যিরূশালেমকে মুক্ত করার প্রয়াসে একাধিক রকাক্ত ও ব্যয়বহুল ধর্মযুদ্ধকে সমর্থন করেছিল I

সংস্কার

বছরের পর বছর ধরে, বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ রোমীয় মন্ডলীর ধর্মতাত্ত্বিক, রাজনৈতিক এবং মানবিক অধিকার লঙ্ঘনের দিকে মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করেছিলেন I সমস্তকিছুকে একরকম বা অন্যরকম ভাবে নীরব করে দেওয়া হয়েছিল I কিন্তু 1517 সালে মার্টিন লুথার নামে একজন জার্মান সন্ন্যাসী মন্ডলীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন এবং সবাই তা শুনেছিল I লুথারের সাথে প্রটেস্টান্ট সংস্কার শুরু হয়েছিল এবং মধ্য যুগকে সমাপ্তিতে নিয়ে আসা হয়েছিল I

লুথার, ক্যালভিন এবং জুইংলি সহ সংস্কারকরা ধর্মতত্বের অনেক সুক্ষ বিষয়গুলিতে পৃথক ছিলেন, তবে মন্ডলীর ঐতিহ্যের উপরে বাইবেলের সর্বোচ্চ কর্ত্তৃত্ব এবং সত্যের উপরে তাদের জোরের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ ছিলেন যে পাপীরা কাজের থেকে পৃথক কেবলমাত্র বিশ্বাসের মাধ্যমে অনুগ্রহের দ্বারা রক্ষা পায় (ইফিষীয় 2:8-9) I

যদিও ক্যাথলিক ধর্মটি ইউরোপে প্রত্যাবর্তন করেছিল এবং প্রটেস্টান্ট ও ক্যাথলিকদের মধ্যে একের পর এক যুদ্ধের সূচনা হয়েছিল, তবে সংস্কারটি রোমান ক্যাথলিক মন্ডলীর শক্তিকে সাফল্যের সাথে ভেঙ্গে দিয়েছিল এবং আধুনিক যুগের প্রতি দ্বার উন্মুক্ত করতে সহায়তা করেছিল I

মিশনের যুগ

1790 থেকে 1900 অবধি, মন্ডলী মিশনারি কাজের প্রতি অভূতপূর্ব আগ্রহ দেখিয়েছিল I উপনিবেশকরণ মিশনের প্রয়োজনের জন্য চোখ খুলেছিল এবং শিল্পায়ন অর্থায়নের ক্ষেত্রে আর্থিক ক্ষমতা দিয়েছিল I মিশনারিরা বিশ্ব জুড়ে সুসমাচার প্রচার করে এবং বিশ্ব জুড়ে মন্ডলী প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল I

আধুনিক মন্ডলী

আজ রোমান ক্যাথলিক মন্ডলী এবং প্রাচ্যের অর্থডক্স মন্ডলী তাদের ভাঙ্গা সম্পর্ককে সংশোধন করার পদক্ষেপ নিয়েছে, যেমন ক্যাথলিক এবং লুথারেন্স রয়েছে I সুসমাচার প্রচারক মন্ডলী দৃঢ়ভাবে স্বাধীন এবং সংশোধিত ধর্মতত্বের সাথে দৃঢ়ভাবে প্রতিষ্ঠিত I এছাড়াও মন্ডলী পেন্টেকোস্টবাদ, অলৌকিকবাদ আন্দোলন, ঐক্যতন্ত্রবাদ, এবং বিভিন্ন পন্থের উত্থানকে দেখেছে I

আমাদের ইতিহাস থেকে আমরা কি শিখি

আমরা যদি মন্ডলীর ইতিহাস থেকে কিছুই না শিখি, আমাদের অন্তত “খ্রীষ্টের বাক্যকে [আমাদের] মধ্যে সমৃদ্ধভাবে বাস করতে দেওয়ার” গুরুত্বকে স্বীকৃতি দেওয়া উচিত (কলসীয় 3:16) I শাস্ত্র কি বলে তা জানার এবং এর দ্বারা বেঁচে থাকার জন্য আমরা প্রত্যেকে দায়বদ্ধ I মন্ডলী যখন বাইবেলের শিক্ষা ভুলে যায় এবং যীশু যা শিখিয়েছিলেন তা উপেক্ষা করে, তখন বিশৃঙ্খলা রাজত্ব করে I

আজ অনেক মন্ডলী আছে, কিন্তু সুসমাচার কেবলমাত্র একটি I এটি হ’ল “বিশ্বাস যা সমস্ত সাধুদের উপরে একসময় অর্পিত হয়েছিল” (যিহূদা 3) I আমরা সেই বিশ্বাসকে রক্ষা করতে এবং এটিকে কোনো পরিবর্তন ছাড়াই সতর্ক হতে পারি, এবং প্রভু তাঁর মন্ডলী তৈরির প্রতিশ্রুতি পালন করতে চালিয়ে যাবেন I

English
বাংলা হোম পেজে ফিরে যান
খ্রীষ্ট ধর্মের ইতিহাস কি?

কিভাবে খুঁজে ...

ঈশ্বর সঙ্গে অনন্তকাল কাটা



ঈশ্বরের কাছ থেকে ক্ষমা লাভ করুন