রাপচার এবং দ্বিতীয় আগমনের মধ্যে কি পার্থক্য?


প্রশ্ন: রাপচার এবং দ্বিতীয় আগমনের মধ্যে কি পার্থক্য?

উত্তর:
রাপচার এবং দ্বিতীয় আগমন প্রায়শই বিভ্রান্তিকর I কখনও কখনও এটি নির্ধারণ করা কঠিন হয় যে কোনো শাস্ত্রলিপি রাপচার বা দ্বিতীয় আগমনকে উল্লেখ করছে কি না I যাইহোক, শেষ সময়ের বাইবেলের ভবিষ্যদ্বাণী অধ্যয়ন করার ক্ষেত্রে, উভয়ের মধ্যে পার্থক্য করা খুবই গুরুত্বপুর্ণ I

রাপচার হ’ল যখন যীশু খ্রীষ্ট মন্ডলীকে (খ্রীষ্টে সমস্ত বিশ্বাসীরা) পৃথিবী থেকে অপসারণ করতে ফিরে আসবেন I 1 থিষলনীকীয় 4:13:18 এবং 1 করিন্থীয়া 15:50-54 এর মধ্যে রাপচারকে বর্ণনা করা হয়েছে I বিশ্বাসীরা যারা মারা গেছে তারা তাদের পুনরুত্থিত দেহ পাবে এবং, সাথে যে বিশ্বাসীরা এখনও বেঁচে আছে, তারা আকাশে প্রভুর সাথে দেখা করবে I চোখের পলকের মধ্যে, এক মুহুর্তে এটি ঘটবে I দ্বিতীয় আগমনটি যখন যীশু খ্রীষ্ট-শত্রুকে পরাস্ত করতে, মন্দকে ধ্বংস করতে এবং তাঁর হাজার বছরের রাজত্বকে প্রতিষ্ঠা করতে ফেরৎ আসবেন I দ্বিতীয় আগমনটি প্রকাশিত বাক্য 19:11-16 এর মধ্যে বর্ণিত হয়েছে I

রাপচার এবং দ্বিতীয় আগমনের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ পার্থক্যগুলি হ’ল:

1) রাপচারের মধ্যে বিশ্বাসীরা আকাশে যীশুর সাথে দেখা করবে (1 থিষলনীকীয় 4:17) I দ্বিতীয় আগমনে, বিশ্বাসীরা প্রভুর সাথে পৃথিবীতে ফিরে আসবে (প্রকাশিত বাক্য 19:14) I

2) দ্বিতীয় আগমনটি মহা ও ভয়াবহ দুর্দশার পরে ঘটে (প্রকাশিত বাক্য 6-19) I রাপচার দুর্দশার আগে ঘটে (1 থিষলনীকীয় 5:9; প্রকাশিত বাক্য 3:10) I

3) রাপচার হ’ল উদ্ধারের একটি কার্য হিসাবে বিশ্বাসীদের অপসারণ (1 থিষলনীকীয় 4:13-17, 5:9) I দ্বিতীয় আগমন ন্যায়বিচারের একটি কার্য হিসাবে বিশ্বাসীদের অপসারণ (মথি 24:40-41) I

4) রাপচার গোপনে এবং তাৎক্ষনিকভাবে হবে (1 করিন্থীয়া 15:50-54) I দ্বিতীয় আগমন সকলের কাছে দৃশ্যমান হবে (প্রকাশিত বাক্য 1:7); মথি (24:29-30) I

5) যতক্ষণ না শেষ সময়ের অন্য কিছু ঘটনা ঘটে ততক্ষণ দ্বিতীয় আগমন ঘটবে না (2 থিষলনীকীয় 2:4; মথি 24:15-30; প্রকাশিত বাক্য অধ্যায় 6-18) I রাপচার অনিবার্য; এটি যে কোনো মুহুর্তে ঘটতে পারে (তীত 2:13; 1 থিষলনীকীয় 4:13-18; 1 করিন্থীয়া 15:50-54) I

রাপচার এবং দ্বিতীয় আগমনটিকে স্বতন্ত্র রাখা গুরুত্বপূর্ণ কেন?

1) রাপচার এবং দ্বিতীয় আগমন যদি এক ঘটনা হত, তবে বিশ্বাসীদের দুর্দশার মধ্যে দিয়ে যেতে হত (1 থিষলনীকীয় 5:9); প্রকাশিত বাক্য 3:10) I

2) রাপচার এবং দ্বিতীয় আগমন যদি এক ঘটনা হত, তবে খ্রীষ্টের প্রত্যাবর্তন অনিবার্য নয় – তাঁর প্রত্যাবর্তনের পূর্বে এমন অনেক জিনিসগুলি আছে যার ঘটা অবশ্যই ছিল (মথি 24:4-30) I

3) দুর্দশাকালের বর্ণনাতে প্রকাশিত বাক্য 16-19 কোথাও মন্ডলীর উল্লেখ করে না I দুর্দশাকালে – যাকে “যাকোবের জন্য বিপত্তির সময়ও বলা হয়” (যিরমিয় 30:7) – ঈশ্বর ইসরায়েলের প্রতি আবার মনোযোগ দেবেন ( রোমীয় 11:17-31) I

রাপচার এবং দ্বিতীয় আগমন সাদৃশ্যপূর্ণ তবে আলাদা ঘটনা I উভয় যীশুর প্রত্যাবর্তনকে অন্তর্ভুক্ত করে I তবে, পার্থক্যগুলি সনাক্ত করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ I গ্রীষ্মকালে, মেঘমালায় যীশুর প্রত্যাবর্তন হ’ল ঈশ্বরের ক্রোধের পূর্বে বিশ্বাসীদের পৃথিবী থেকে অপসারণ করা I দ্বিতীয় আগমন হ’ল পৃথিবীতে যীশুর প্রত্যাবর্তন দুর্দশাকে শেষ করা এবং খ্রীষ্টশত্রু এবং তার মন্দ বিশ্ব সাম্রাজ্যকে পরাস্ত করা I

English
বাংলা হোম পেজে ফিরে যান
রাপচার এবং দ্বিতীয় আগমনের মধ্যে কি পার্থক্য?

কিভাবে খুঁজে ...

ঈশ্বর সঙ্গে অনন্তকাল কাটা



ঈশ্বরের কাছ থেকে ক্ষমা লাভ করুন