শিশু ও কম বয়সের বাচ্চারা মারা গেলে তাদের কি হয়? বাইবেলের মধ্যে কোথায় জবাবদিহির বয়স খুঁজে পাই?


প্রশ্ন: শিশু ও কম বয়সের বাচ্চারা মারা গেলে তাদের কি হয়? বাইবেলের মধ্যে কোথায় জবাবদিহির বয়স খুঁজে পাই?

উত্তর:
“জবাবদিহির বয়সের” ধারনাটি হ’ল যে শিশুরা একটি নির্দিষ্ট বয়সে না আসা পর্যন্ত ঈশ্বরের দ্বারা তারা পাপের জন্য দায়ী হয় না, এবং যদি কোনো শিশু “জবাবদিহির বয়সের” আগে মারা যায় তবে সেই শিশুকে ঈশ্বরের অনুগ্রহ ও করুণায় স্বর্গে প্রবেশ করার গ্যারান্টি দেওয়া হবে I জবাবদিহির বয়সের ধারনাটি কি বাইবেল সম্মত? “নির্দোষিতার বয়স” বলে এই জাতীয় কোনো বিষয় আছে কি?

জবাবদিহিতার বয়স সম্পর্কিত আলোচনায় প্রায়শই হারিয়ে যাওয়া ঘটনাটি হ’ল যে বাচ্চারা, যতই কম বয়সী হোক না কেন, নিষ্পাপ হওয়ার অর্থে “নির্দোষ” নয় I বাইবেল আমাদের বলে যে, এমনকি একজন শিশু বা বাচ্চা ব্যক্তিগত পাপ না করে থাকে, উত্তরাধিকারসুত্রে প্রাপ্ত এবং অভিযুক্ত পাপের কারণে শিশু বা বাচ্চা সহ সমস্ত লোক ঈশ্বরের সামনে দোষী I উত্তরাধিকারসুত্রে প্রাপ্ত পাপ হ’ল যা আমাদের পিতামাতার কাছ থেকে আসে I গীতসংহিতা 51:5 এর মধ্যে দায়ূদ লিখলেন, “আমার জন্মের সময় থেকে আমি অবশ্যই পাপী ছিলাম, আমার মা যখন গর্ভধারণ করেছিলেন তখন থেকেই আমি পাপী ছিলাম I” দায়ূদ জেনেছিলেন এমনকি গর্ভধারণের সময়ও তিনি পাপী ছিলেন I খুব দুঃখজনক সত্য যে শিশুরা মাঝে মাঝে মারা যায় তা প্রদর্শন করে যে এমনকি শিশুরাও আদমের পাপের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিল, যেহেতু শারীরিক ও আত্মিক মৃত্যু ছিল আদমের মূল পাপের কারণ I

নাবালিক, বা সাবালক হোক, প্রত্যেক ব্যক্তি ঈশ্বরের সামনে দোষী হয়; প্রতিটি ব্যক্তি ঈশ্বরের পবিত্রতা ক্ষুন্ন করেছে I ঈশ্বর কেবলমাত্র ন্যায়পরায়ণ হতে পারেন এবং একই সময়ে একজন ব্যক্তিই ধার্মিক বলে ঘোষণা করতে পারেন যে সেই ব্যক্তি খ্রীষ্টের প্রতি বিশ্বাসের মাধ্যমে ক্ষমা পেয়েছে I খ্রীষ্টই একমাত্র পথ I যোহন 14:6 যীশুর কথা লিপিবদ্ধ করে: “আমিই পথ, ও সত্য, ও জীবন; আমার মাধ্যম ছাড়া কেউ পিতার কাছে আসতে পারে না I” এছাড়াও প্রেরিত 4:12 এর মধ্যে পিতর বলেন, “পরিত্রাণ আর কারোর মধ্যে পাওয়া যায় না, কারণ স্বর্গের নিচে এমন আর কোনো নাম নেই যা মানুষের দেওয়া হয়, যার দ্বারা আমাদের অবশ্যই উদ্ধার পেতে হবে I” পরিত্রাণ একটি ব্যক্তিগত পচ্ছন্দ I

শিশু এবং অল্প বয়স্ক শিশুদের সম্পর্কে কি হয় যারা এই স্বতন্ত্র পচ্ছন্দটি করার ক্ষমতা অর্জন করে না? জবাবদিহিতার বয়স ধারণাটি হ’ল যে দায়বদ্ধতার বয়সে পৌছোনার আগে যারা মারা যায় তাদের ঈশ্বরের অনুগ্রহ ও করুণার দ্বারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে রক্ষা করা হয় I জবাবদিহিতার বয়স হ’ল বিশ্বাস যে ঈশ্বর তাদের সকলকে উদ্ধার করেন যারা খ্রীষ্টের পক্ষে বা বিপক্ষে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা অর্জন করে নি I এই বিষয়টির সাথে কথা বলতে পারে এমন একটি পদ হ’ল রোমীয় 1:20, “ যেহেতু বিশ্বের সৃষ্টিকাল অবধি ঈশ্বরের অদৃশ্য গুণাবলী রয়েছে – তার অনন্তকালীন শক্তি ঐশ্বরিক প্রকৃতি - পরিষ্কারভাবে দেখা গেছে, যা বোঝা যাচ্ছে কোথা থেকে তৈরী হয়েছে, যাতে লোকেদের কাছে কোনো অজুহাত না থাকে I” এর মতে ঈশ্বরের ভিত্তিতে মানবজাতির দোষ কিছুটা হলেও এই সত্যের ভিত্তিতে যে লোকেরা ঈশ্বরের অস্তিত্ব, চিরন্ততা এবং শক্তি “স্পষ্টতই দেখতে” পাবে তা প্রত্যাখান করে I এটি শিশুদের প্রশ্নের দিকে নিয়ে যায় যাদের “স্পষ্টভাবে দেখার” জন্য কোনো ব্যক্তিগত গুণ বা যুক্তি নেই – পর্যবেক্ষণ ও যুক্তিসঙ্গত করতে তাদের প্রাকৃতিক অক্ষমতা তাদের কি কোনো অজুহাত দেবে না?

জবাবদিহিতার বয়স অনুসারে 13 হ’ল সবচেতে সাধারণ বয়স, যিহূদি রীতি অনুসারে যে কোনো শিশু 13 বছর বয়সে প্রাপ্তবয়স্ক হয় I যাইহোক, বাইবেল 13 বছর বয়সের ক্ষেত্রে সর্বদা দায়বদ্ধতার বয়স হিসাবে সরাসরি সমর্থন দেয় না I এটি সম্ভবত একটি শিশু থেকে অন্য শিশুতে পরিবর্তিত হয় I কোনো শিশু একবার খ্রীষ্টের পক্ষে বা বিপক্ষে বিশ্বাসের সিদ্ধান্ত নিতে সক্ষম হলে সে দায়বদ্ধতার বয়স পেরিয়ে যায় I স্পার্জিউনের মত ছিল যে “পাঁচ বছরের একটি শিশু একজন প্রাপ্তবয়স্ক হিসাবে সত্যিকারের বাঁচতে এবং পুনর্জন্ম পেতে পারে I”

উপরের কথা মাথায় রেখে, এটিকে বিবেচনা করুন: খ্রীষ্টের মৃত্যু সমস্ত মানবজাতির পক্ষে যথেষ্টরূপে উপস্থাপিত I প্রথম যোহন 2:2 বলে যীশু হলেন, “আমাদের পাপের জন্য প্রায়শ্চিত্তের বলিদান, এবং কেবল আমাদেরই নয়, সমগ্র বিশ্বের পাপের জন্যও I” এই পদটি পরিষ্কার যে যীশুর মৃত্যু সমস্ত পাপের জন্য যথেষ্ট ছিল, না কেবল তাদের পাপের জন্য যারা নির্দিষ্টভাবে তাঁর কাছে বিশ্বাসের মধ্যে এসেছে I খ্রীষ্টের মৃত্যু যে সমস্ত পাপের জন্য যথেষ্ট তা এই সত্য যে ঈশ্বরের পক্ষে সেই মূল্য প্রদান করার সম্ভাবনাকে অনুমতি দেবে তাদের পক্ষে যারা কখনও বিশ্বাস করতে সক্ষম হয় নি I

কতিপয় লোক জবাবদিহিতার বয়স এবং ইস্রায়েল জাতির এবং সদাপ্রভুর মধ্যে নিয়মের সম্পর্কের ক্ষেত্রে একটি যোগসূত্র দেখতে পান, যেখানে খৎনা ছাড়া অন্য কোনো নিয়মের মধ্যে পুরুষ বাচ্চাকে অন্তর্ভুক্ত করার প্রয়োজন নেই, যা তার জন্মের অষ্টম দিনে করা হত (যাত্রাপুস্তক 12:48-50; লেবীয় 12:3) I

প্রশ্ন ওঠে, “পুরনো নিয়মের অন্তর্ভুক্ত প্রকৃতি কি গির্জার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য?” পেন্টেকোষ্টের দিন, পিতর বলেছিলেন, “অনুতাপ কর এবং তোমরা প্রত্যেকে নিজের পাপের ক্ষমার জন্য যীশু খ্রীষ্টের নামে বাপ্তিস্ম গ্রহণ কর; এবং তারা পবিত্র আত্মার বরদান পাবে I” কারণ এই প্রতিশ্রুতি তোমাদের জন্য ও তোমাদের সন্তানগণের জন্য এবং দূরবর্তী সকলের জন্য যতলোককে আমাদের প্রভু ঈশ্বর ডেকে আনবেন (প্রেরিত 2:38-39 NAS) I” এখানে শিশুরা (গ্রীক ভাষায় টেকন) শব্দের অর্থ “সন্তান, কন্যা, পুত্র” I প্রেরিত 2:39 ইঙ্গিত দেয় যে পাপের ক্ষমা এক এবং সকলের জন্য উপলব্ধ (তুলনা প্রেরিত 1:8), ভবিষ্যতের প্রজন্মগুলি সহ I

এটি পরিবার বা পরিবারের মুক্তির শিক্ষা দেয় না I যারা অনুতাপ করেছিল তাদের সন্তানদেরও অনুতাপ করার দরকার ছিল I

যে অধ্যায়টিকে অন্য যে কোনোটির চেয়ে বেশি চিহ্নিত করার মতন মনে হয় এটি 2 শমুয়েল 12:21-23. এই পদগুলির প্রসঙ্গটি হ’ল রাজা দায়ূদ বৎশেবার সাথে ব্যভিচার করেছিলেন, যার ফলে গর্ভধারণ হয় I সদাপ্রভু ভাববাদী নাথানকে পাঠিয়েছিলেন যে তার পাপের কারণে সদাপ্রভু শিশুটিকে মৃত্যুর মধ্যে নিয়ে যাবেন I দায়ূদ সন্তানটির জন্য শোক ও প্রার্থনা করে এর জবাব দিলেন I তবে একবার শিশুটিকে নিয়ে যাওয়ার পরে দায়ূদের শোক শেষ হ’ল I দায়ূদের কর্মচারীরা এই শুনে অবাক হয়ে গেল I তারা রাজা দায়ূদকে জিজ্ঞাসা করল, “এটা আপনি কি করেছেন? শিশুটি জীবিত থাকাকালীন, আপনি উপবাস করে কাঁদলেন; কিন্তু শিশুটি মারা গেলে আপনি উঠে খাবার খেলেন I” দায়ূদের প্রতিক্রিয়া ছিল, “শিশুটি জীবিত থাকাকালীন আমি উপবাস করেছি এবং কেঁদেছি; কারণ আমি বলেছিলাম, ‘কে জানে, সদাপ্রভু আমার প্রতি করুণা বোধ করতে পারেন যাতে শিশুটি বাঁচতে পারে I’ কিন্তু এখন সে মারা গেছে; কেন আমি উপবাস করব? আমি কি তাকে আবার ফিরিয়ে আনতে পারব? আমি তার কাছে যাব, কিন্তু সে আমার কাছে ফিরে আসবে না I” দায়ূদের প্রতিক্রিয়া ইঙ্গিত দেয় যে যারা বিশ্বাস করতে পারে না তারা সদাপ্রভুতে নিরাপদ I দায়ূদ বললেন যে তিনি সন্তানের কাছে যেতে পারেন কিন্তু সন্তানকে তার কাছে ফিরিয়ে আনতে পারেন না I এছাড়াও, ঠিক গুরুত্বপূর্ণ হিসাবে, দায়ূদ এই জ্ঞান দ্বারা স্বান্তনা পেয়েছিলেন বলে মনে হয়েছিল I অন্য কথায় দায়ূদ মনে হয় বলেছিলেন যে তিনি তার শিশু পুত্রকে (স্বর্গে) দেখবেন, যদিও তিনি তাকে ফিরিয়ে আনতে পারেন নি I

যদিও এটি সম্ভব যে পাপের জন্য খ্রীষ্টের মূল্য প্রদান ঈশ্বর তাদের জন্য প্রয়োগ করেন যারা বিশ্বাস করতে পারে না, বাইবেল স্পষ্টভাবে বলে না যে তিনি এটি করেন I অতএব এটি এমন একটি বিষয় যার সম্পর্কে আমাদের অবিচল বা গোঁড়া হওয়া উচিত নয় I যারা বিশ্বাস করতে পারে না তাদের উপরে ঈশ্বরের দ্বারা খ্রীষ্টের মৃত্যুর প্রয়োগ তাঁর করুণা ও ভালোবাসার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ বলে মনে হয় I আমাদের অবস্থান যে ঈশ্বর শিশুদের এবং যারা মানসিক প্রতিবন্ধী তাদের পাপের জন্য খ্রীষ্টের মূল্য প্রদান প্রয়োগ করেন, যেহেতু তারা তাদের পাপপূর্ণ অবস্থা এবং উদ্ধারকর্তার জন্য তাদের প্রয়োজনীয়তা বুঝতে মানসিকভাবে সক্ষম নয়, তবে আমরা আবার গোঁড়া হতে পারি না I এর থেকে আমরা নিশ্চিত: ঈশ্বর প্রেমময়, পবিত্র, করুণাময়, ন্যায়পরায়ণ, এবং অনুগ্রহকারী I ঈশ্বর যাই করুন না কেন তা ন্যায্য এবং উত্তম, এবং তিনি আমাদের চেয়েও শিশুদের বেশি ভালবাসেন I

English
বাংলা হোম পেজে ফিরে যান
শিশু ও কম বয়সের বাচ্চারা মারা গেলে তাদের কি হয়? বাইবেলের মধ্যে কোথায় জবাবদিহির বয়স খুঁজে পাই?

কিভাবে খুঁজে ...

ঈশ্বর সঙ্গে অনন্তকাল কাটা



ঈশ্বরের কাছ থেকে ক্ষমা লাভ করুন