আমি একজন মুশলমান, আমি কেন খ্রীস্টান হবার বেপারে বিবেচনা করব?



প্রশ্ন: আমি একজন মুশলমান, আমি কেন খ্রীস্টান হবার বেপারে বিবেচনা করব?

উত্তর:
মুশলমান বলুন, বুদ্ধিস্ট বলুন, বা ক্যাথলিক ই বলুন না কেন তারা তাদের অবিভাবক বা সংস্কৃতি অনুযায়ী ধর্ম পালন করে থাকে. কিন্তু যখন আমরা বিচারের দিনে ঈশ্বরে সামনে দারাব, সেই দিন প্রতেক মানুষের তাদের নিজনিজ হিসাব দিতে হবে, যে সে ঈশ্বরের সত্তে বিশ্বাস করেছে কি না. কিন্তু এতগুলো ধর্মের মধ্যে, কোনটা সত্তি? “ যীশু তাঁকে বললেন, ‘আমিই পথ, আমিই সত্য ও জীবন৷ পিতার কাছে যাবার আমিই একমাত্র পথ”(জোহোন ১৪:৬).

প্রকৃত খ্রিস্টানরা যিশুর অনুগামী হয়. কি করে যীশু ঈশ্বরের কাছে যাওয়ার এক মাত্র পথ হবার দাবি করতে পারেন? আসুন আমরা ধর্ম শাস্ত্র বাইবেল থেকে এই প্রশ্নর উত্তর দেখে নেই.

যিশুর জীবন, মৃত্যু, এবং পুনুউত্থান

কুমারীর মারিয়ার গর্ভে জন্মগ্রহণ করে কি ভাবে যীশু ভবিষ্যতবানী পূর্ণ করেছেন তা বাইবেল এ নথিভুক্ত করা আছে. যীশু অন্যান্য মানুষের থেকে অনন্যা ভাবে বড় হয়েচিলেনে কারণ উনি কক্ষনো পাপ করেননি (১ পিতর ২:২২). মানুষের ভিড় একজোট বাধত ওনার শিক্ষা সোনার জন্য, এবং বিস্মিত হত ওনার অলৌকিক কাজ দেখে. যীশু রুগীদের সুস্থ কছেন, মৃত কে জীবন দিয়েছেন, এবং জলের ওপর দিয়ে হেটেছেন.

সকল মানুষের মধ্যে, যীশুর মৃত্যু প্রাপ্য ছিলেন না. তবুও যীশু ভবিষ্যতবানী করেছিলেন যে তাকে ক্রুশে দেওয়া হবে ও তিনি মৃতদের মাঝ থেকে পুনুরুত্থিত হবেন. (মথি ২০:১৮-১৯). ওনার বাক্য পূর্ণ হলো. সেনারা তাকে মারধর করে তার মাথায় কাটার মুকুট পরিয়ে দিল; মানুষের ভিড় তাকে ঠাট্টা করে তার ওপর থুথু ফেলল; প্রেক দিয়ে তার হাত ও পা কাঠের ক্রুশে বিদ্ধ করা হলো. যিশুর কাছে নিজেকে বাচাবার শক্তি ছিল, কিন্তু তিনি স্বইচ্ছায় ক্রুশীয় মৃত্যু বরণ করলেন. (যোহন ১৯:৩০). তিন দিন পর, যীশু কবর থেকে উঠে এলেন!

ক্রুশ কেন?

এক জন মুশলমান হিসেবে, আপনি জিগ্গেস করতে পারেন, “কেন আল্লা তার পায়গাম্বার ইসা কে দুর্বেবহারিত হতে দেবেন এবং তার মৃত্যু অনুমোদিত করবেন?” যীশু খ্রিস্টের মৃত্যু প্রয়োজনীয় ছিল কারণ...

• প্রত্যেক মানুষ ই পাপী: “সকলেই পাপ করেছে এবং ঈশ্বরের মহিমা থেকে বঞ্চিত হয়েছে”(রোমিও ৩:২৩). মা বাবা কে অসম্মান করা, মিথ্যে বলা, ঈশ্বরকে ভালবাসতে অসমর্থ হওয়া, বা ঈশ্বরের বাক্কে বিশ্বাস না করা, আমরা সবাই পবিত্র ঈশ্বরের বিরুদ্ধে পাপ করেছি.

• পাপের শাস্তি হলো মৃত্যু: “কারণ পাপের বেতন মৃত্যু” (রোমিও ৬:২৩ক). ঈশ্বর তার ক্রোধে অবিশ্বাসী পাপীদের পৃথক করে তাদের চিরকালের জন্য নরকে পাঠিয়ে দেন.(২ থেসালোনিকীয়১:৮,৯). এক জন বিচারক হিসেবে, ঈশ্বর কখনো পাপ মার্জনা করবেন না.

• আমরা ভালো কাজ দ্বারা নিজেকে বাচাতে পারব না: “কারণ ঈশ্বরের অনুগ্রহের দ্বারা বিশ্বাসের মধ্য দিয়ে তোমরা উদ্ধার পেয়েছ৷ বিশ্বাস করাতেই তোমরা সেই অনুগ্রহ পেয়েছ৷ তোমরা নিজেরা নিজেদের উদ্ধার কর নি; কিন্তু তা ঈশ্বরের দানরূপে পেয়েছ৷ তোমাদের নিজেদের কর্মের ফল হিসেবে তোমরা উদ্ধার পাও নি, তাই কেউই গর্ব করে বলতে পারে না য়ে সে তার নিজের দ্বারা উদ্ধার পেয়েছে৷” (এফিশিও ২:৮,৯). এটাই হলো ইসলাম ও খ্রীস্টান ধর্মের মূল পার্থক্য. ইসলাম এই শিক্ষা দেয় যে এক জন মানুষ পাচটি স্তম্ভ মেনে সর্গ অর্জন করতে পারে. যদি ও ভালো কাজ দ্বারা মন্দ অতিক্রম করা যেত, বাইবেল আমাদের শেখায় যে, “এমন কি আমাদের ভাল কাজও অশুদ্ধ (ইসাইয়া ৬৪:৬খ). এমন কি ছোট্ট একটা পাপ ও মানুষকে কে ঈশ্বরের সমস্ত নিয়ম ভাঙ্গার দোষী করে. (যাকোব ২:১০). পাপী মানুষ কিছুতেই কিছু করে স্বর্গের যোগ্যতা অর্জন করতে পারে না.

• ঈশ্বর পাপীদের জন্য তার পুত্র কে দান করেছেন: “ কারণ ঈশ্বর এই জগতকে এতোই ভালবাসেন য়ে তিনি তাঁর একমাত্র পুত্রকে দিলেন, য়েন সেই পুত্রের ওপর য়ে কেউ বিশ্বাস করে সে বিনষ্ট না হয় বরং অনন্ত জীবন লাভ করে” (যোহন৩:১৬). ঈশ্বর জানতেন যে মানুষের পাপ তাদের সর্গ থেকে দুরে করেছে. ঈশ্বর জানতেন যে পাপের ঋণ শোধ করার এক মাত্র উপায় হলো নির্ভুল এক জন নিজের মৃত্যু দ্বারা তার মূল্য শোধ করুক. ঈশ্বর জানতেন যে এমন অসীম মূল্য এক মাত্র উনিই শোধ করতে পারবেন. তাই ঈশ্বরের অনন্ত পরিকল্পনা ছিল যে সে তার পুত্র যীশু কে পাঠান বিশ্বাসী পাপীর জায়গায় মরতে.

এক জন খ্রীস্টান হওয়া

“প্রভু যীশুর ওপর বিশ্বাস করুন, তাহলে আপনি ও আপনার গৃহের সকলেই উদ্ধার লাভ করবেন” (প্রেরিত ১৬:৩১).

এক জন মুশলমান হিসাবে আপনি বলতে পারেন যে, “ও আমি যিশুতে বিশ্বাস করি. আমি বিশ্বাস করি যে ইসা এক জন স্ভাল শিক্ষক, এক জন মহান নবী, ও এক জন ভালো মানুষ ছিলেন.”

কিন্তু আপনি বলতে পারেন না যে যীশু সত্তি শিক্ষক ছিলেন আর আপনি তার শিক্ষা অমান্য করেন যে তিনি পথ, সত্য, ও জীবন (যোহন ১৪:১৬). আপনি এটা বলতে পারেন যে উনি এক জন নবী ছিলেন, অথচ উনি যে নিজের মিত্যু এবং পুনুরুত্থানের বেপারে ভবিষ্যতবানী করেছিলেন তাতে বিশ্বাস করেন না. (লুকে ১৮:৩১-৩৩). আপনি এটা বলতে পারেন না যে যীশু এক জন ভালো মানুষ ছিলেন অথচ ওনার ঈশ্বরপুত্র হবার দাবি আপনি মেনে নেন না. (লুকে ২২:৭০; যোহন ৫:১৮-৪৭).

আপনি খ্রিস্টিয়ান হবার কথা বিবেচনা করতে পারেন না যত ক্ষণ না আপনি বুঝতে পারেন যে খ্রীস্টান ধর্ম অন্য সব ধর্মের বহিষ্কার করে থাকে (প্রেরিত ৪:১২). খ্রীস্টান ধর্মের অপরিহার্য উপসংহার এই যে: হয় যীশু আপনার পাপ ক্রুশে বহন করবে অথবা আপনাকে নিজেই নিজের পাপ নরকে বহন করতে হবে. “যে কেউ পুত্রের ওপর বিশ্বাস করে সে অনন্ত জীবনের অধিকারী হয়; কিন্তু য়ে পুত্রকে অমান্য করে সে সেই জীবন কখনও লাভ করে না, বরং তার ওপরে ঈশ্বরের ক্রোধ থাকে” (যোহন 3:৩৬).

যখন আপনি বাইবেল এ খুজবেন, তখন পরেমেশ্বর আপনার হৃদয় জাগিয়ে তুলুক যাতে আপনি আপনার পাপ থেকে ফিরতে পারেন ও যীশু খ্রিষ্টের উপর বিশ্বাস করেন. নিচে দেওয়া প্রার্থনা দ্বারা আপনি সাড়া দিতে পারেন. মনে রাখবেন যে এই প্রার্থনা আপনাকে বাচাতে পারে না. এক মাত্র ঈশ্বর আপনাকে বাচাতে পারেন! কিন্তু প্রার্থনা আপনার বিশ্বাসের অভিব্যক্তি হতে পারে যা আপনাকে ঈশ্বর দিয়ে থাকেন প্রভু যীশু খ্রিষ্টের দ্বারা.

“প্রিয় প্রভু, আমি দুঃক্ষিত যে আমি আপনার বির্রুদ্ধে পাপ করেছি. এক জন পাপী হিসেবে আমি নরকের মৃত্যু ভোগবার যোগ্য. কিন্তু আমি বিশ্বাস করি যে আপনি আপনার পুত্র, যীশু কে, পাঠিয়েছেন পাপের জন্য ক্রুশে মরতে ও মৃতদের মাঝ থেকে পুনুরুত্থিত হয়ে বিজয়ী হতে. এখন থেকে আমি পাপের পথ থেকে ফিরে নিজের চেষ্টায় সর্গ লাভ করার আর চেষ্টা করব না. আমার পাপের মুক্তির জন্য আমি এক মাত্র প্রভু যিশুর ওপর বিশ্বাস রাখব. আমি আপনাকে ভালোবাসি, প্রভু, এবং আমি নিজেকে আপনার বাক্য বাইবেল অনুসারে অনুসরণ করব. আমেন!”

এগুলো পড়ে আপনি কি খ্রীষ্টের পক্ষে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছেন? যদি নিয়ে থাকেন, তাহলে, ‘আমি আজকে খ্রীষ্টকে গ্রহণ করেছি’ লেখা নীচের বোতামে টিক চিহ্ন দিন।



বাংলা হোম পেজে ফিরে যান



আমি একজন মুশলমান, আমি কেন খ্রীস্টান হবার বেপারে বিবেচনা করব?