একজন নতুন জন্ম পাওয়া খ্রীষ্টিয়ান মানে কি?



প্রশ্ন: একজন নতুন জন্ম পাওয়া খ্রীষ্টিয়ান মানে কি?

উত্তর:
একজন নতুন জন্ম পাওয়া খ্রীষ্টিয়ান মানে কি? বাইবেলের নতুন নিয়মে যোহন ৩:১-২১ পদের মধ্যে এই গুরুত্বপূর্ন প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যায়। এখানে নীকদীম নামে একজন (সেনহেড্রিনের সদস্য)খ্যাতনামা ফরীশী যিহূদী নেতার সাথে যীশু কথপোকথন করেছিলেন। যীশুকে জিজ্ঞাসা করতে নীকদীম একটা প্রশ্ন করেছিলেন।

নীকদীমের সাথে কথপোকথন করতে গিয়ে যীশু বলেছিলেন, “আমি আপনাকে সত্যিই বলছি, নতুন করে জন্ম না হলে কেউ ঈশ্বরের রাজ্য দেখতে পায় না।” তখন নীকদীম বলেছিলেন, “মানুষ বুড়ো হয়ে গেলে কেমন করে তার আবার জন্ম হতে পারে? দ্বিতীয় বার মায়ের গর্ভে ফিরে গিয়ে সে কি আবার জন্মগ্রহণ করতে পারে?” যীশু উত্তরে বলেছিলেন, “আমি আপনাকে সত্যিই বলছি, জল এবং পবিত্র আত্মা থেকে জন্ম না হলে কেউই ঈশ্বরের রাজ্যে ঢুকতে পারে না। মানুষ থেকে যা জন্মে তা মানুষ, আর যা পবিত্র আত্মা থেকে জন্মে তা আত্মা। আমি যে আপনাকে বললাম, ‘আপনাদের নতুন করে জন্ম হওয়া দরকার’, এতে আশ্চর্য হবেন না”(যোহন ৩:৩-৭ পদ)।

মূলত “নতুন জন্ম” বলতে বুঝায় “উপর থেকে জন্ম নেওয়া।” এটা নীকদীমের সত্যিই দরকার ছিল। তার দরকার ছিল হৃদয়ের পরিবর্তন– এক আত্মিক রুপান্তর। নতুন করে জন্ম অর্থাৎ ‌‌‌নতুন জন্ম হচ্ছে ঈশ্বরের কাজ, আর যে ব্যক্তি তা বিশ্বাস করে তার জীবনে অনন্তজীবন যুক্ত হয় (২ করিন্থীয় ৫:১৭; তীত ৩:৫; ১ পিতর ১:৩; ১ যোহন ২:২৯; ৩:৯;৪:৭; ৫:১-৪ ও ১৮ পদ দ্রষ্টব্য)। আবার, যোহন ১:১২,১৩ পদ বলে যে, “নতুন জন্ম” মানে অন্যভাবে, যীশু খ্রীষ্টের নামে বিশ্বাস করে “ঈশ্বরের সন্তান হবার” অধিকার পাবার কথাও বলে।

যুক্তিসংগত ভাবেই প্রশ্ন আসে, “কেন একজন ব্যক্তির নতুন জন্ম দরকার?” ইফিষীয় ২:১ পদে প্রেরিত পৌল লিখেছেন, “অবাধ্যতা আর পাপের দরুন তোমরা মৃত ছিলে”। তারপর, তিনি রোমীয় ৩:২৩ পদে লিখেছেন, “কারণ সবাই পাপ করেছে এবং ঈশ্বরের প্রশংসা পাবার অযোগ্য হয়ে পড়েছে।” তাহলে, পাপের ক্ষমা পেতে এবং ঈশ্বরের সাথে সম্পর্ক স্থাপন করতে একজনকে নতুন জন্ম পেতে হবে।

কিভাবে এটা হতে পারে? ইফিষীয় ২:৮-৯ পদ বলেছে, “ঈশ্বরের দয়ায় বিশ্বাসের মধ্য দিয়ে তোমরা পাপ থেকে উদ্ধার পেয়েছ। এটা তোমাদের নিজেদের দ্বারা হয় নি, তা ঈশ্বরেরই দান। এটা কাজের ফল হিসাবে দেওয়া হয় নি, যেন কেউ গর্ব করতে না পারে।” তার মানে, একজন ব্যক্তি যখন “উদ্ধার”(পরিত্রাণ) পায়, সে-তো নতুন জন্ম লাভ করেছে, আত্মিকভাবে নতুনীকৃত হয়েছে এবং নতুন করে জন্ম নেবার ফলে এখন ঈশ্বরের একজন সন্তানও হয়েছে। আত্মিকভাবে “নতুন জন্ম” মানে হচ্ছে এটাই, যখন একজন ব্যক্তি যীশুকে বিশ্বাস করেছে, যিনি ক্রুশে মৃত্যুবরণ করে তার পাপের জন্য প্রায়শ্চিত্ব করেছেন। “যদি কেউ খ্রীষ্টের সংগে যুক্ত হয়ে থাকে তবে সে নতুনভাবে সৃষ্ট হল। তার পুরানো সব কিছু মুছে গিয়ে সব নতুন হয়ে উঠেছে।” (২ করিন্থীয় ৫:১৭ পদ)।

আপনি যদিও প্রভু যীশু খ্রীষ্টকে আপনার পরিত্রাণকর্তা বা উদ্ধারকর্তা বলে কখনও বিশ্বাস না করেন, তবুও আপনি কি পবিত্র আত্মাকে সুযোগ দেবেন যেন তিনি আপনার হৃদয়ে কথা বলতে পারেন? আপনার নতুন করে জন্ম নেওয়া দরকার। আপনি কি অনুতাপের প্রার্থনা করবেন, যেন আজই খ্রীষ্টে নতুনভাবে সৃষ্টি হতে পারেন? “তবে যতজন তাঁর উপরে বিশ্বাস করে তাঁকে গ্রহণ করল তাদের প্রত্যেককে তিনি ঈশ্বরের সন্তান হবার অধিকার দিলেন। এই লোকদের জন্ম রক্ত থেকে হয় নি, শারীরিক কামনা বা পুরুষের বাসনা থেকেও হয় নি, কিন্তু ঈশ্বর থেকেই হয়েছে” (যোহন ১:১২-১৩ পদ)।

আপনি যদি যীশু খ্রীষ্টকে আপনার পরিত্রাণকর্তা বা উদ্ধারকর্তা বলে গ্রহণ করতে চান ও নতুন জন্ম পেতে চান, তাহলে এখানে একটা প্রার্থনার উদাহরণ দেওয়া হল। তবে মনে রাখবেন, এই প্রার্থনা বললে বা অন্য কোন প্রার্থনা বললেই আপনি উদ্ধার পাবেন না। শুধুমাত্র খ্রীষ্টে বিশ্বাস করলেই আপনি পাপ থেকে উদ্ধার পেতে পারেন। এই প্রার্থনাটি ঈশ্বরের কাছে আপনার বিশ্বাসকে প্রকাশ করার এবং আপনাকে পরিত্রাণ বা উদ্ধার করেছেন বলে তাঁকে ধন্যবাদ জানানোর একটা সোজা পথ। ‘ঈশ্বর, আমি জানি আমি আপনার বিরুদ্ধে পাপ করেছি; সেজন্য শাস্তি আমার পাওনা। কিন্তু যীশু খ্রীষ্ট আমার পাওনা শাস্তি নিজেই নিয়েছেন যেন তাঁকে বিশ্বাস করে আমি ক্ষমা পেতে পারি। পরিত্রাণ বা উদ্ধারের জন্য আমি আপনার প্রতি বিশ্বাস রাখি। আপনার অতুলনীয় অনুগ্রহ ও ক্ষমার জন্য এবং অনন্তজীবন দানের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ! আমেন!’

এগুলো পড়ে আপনি কি খ্রীষ্টের পক্ষে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছেন? যদি নিয়ে থাকেন, তাহলে, ‘আমি আজকে খ্রীষ্টকে গ্রহণ করেছি’ লেখা নীচের বোতামে টিক চিহ্ন দিন।



বাংলা হোম পেজে ফিরে যান



একজন নতুন জন্ম পাওয়া খ্রীষ্টিয়ান মানে কি?